লজ্জার রেকর্ড মিরাজের!

নিজেদের প্রথম ইনিংসে রানের পহাড় গড়েছে নিউজিল্যান্ড। রেকর্ড ৭১৫ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে তারা। নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে এই প্রথম ৭০০ রান করে কিউইরা। এই বিশাল সংগ্রহ গড়তে বাংলাদেশি বোলারদের নিয়ে রীতিমতো ছেলেখেলায় মেতে ওঠে স্বাগতিক ব্যাটসম্যান। আর এতেই হয়ে গেল একটি লজ্জার রেকর্ড। রান খরচে বাংলাদেশি স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ সবার ওপরে উঠে গেলেন। টেস্টে এক ইনিংসে বাংলাদেশের সবচেয়ে খরুচে বোলার এখন তিনিই।

অনেকেই হাসির ছলে বলতে ভুলেননি, ‘ডাবল সেঞ্চুরি’ করেছেন মিরাজ। মিরাজের এই ‘ডাবল সেঞ্চুরি’ হলো  ৪৯ ওভার বল করে ২৪৬ রান দিয়েছেন তিনি। টেস্টে এর আগে বাংলাদেশের সবচেয়ে খরুচে বোলার ছিলেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। গত বছর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৬৭.৩ ওভারে ২১৯ রান খরচ করেছিলেন তিনি।

তবে টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি রান খরচের তালিকায় মিরাজ আছেন ষষ্ঠ স্থানে। আর শীর্ষে আছেন সাবেক অস্ট্রেলিয়ান বোলার চাক ফ্লিটউড-স্মিথ। ১৯৩৮ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৮৭ ওভারে ২৯৮ রান দিয়েছিলেন তিনি।

এই ম্যাচে বাংলাদেশ বেশ চাপের মুখে, ম্যাচে তাদের হারটা অনেকটাই নিশ্চিত বলা যায়। প্রথম ইনিংসে তামিম ইকবালের চমৎকার সেঞ্চুরির পরও ২৩৪ রানে ইনিংস থামে। জবাবে ৭১৫ রান করে নিউজিল্যান্ড।

ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ১৭৪ রান তুলেছে বাংলাদেশ। এই রান তুলতে তৃতীয় দিন শেষে তারা উইকেট হারিয়েছে চারটি।

এই ইনিংসেও চমৎকার খেলেছেন বাংলাদেশি ওপেনার তামিম ইকবাল। দারুণ দৃঢ়তা দেখিয়ে কিছুটা আশা জাগালেও শেষ পর্যন্ত ৭৪ রান করেই সাজঘরে  ফিরে যান এই বাঁহাতি ওপেনার। ৮৬ বল খেলেছেন, ১২টি চার ও একটি ছক্কার মার ছিল তাঁর এই ইনিংসে।

তবে তামিমের আউটটি ছিল দুর্ভাগ্যজনক। দলীয় ১৩০ রানের মাথায় ৩১তম ওভারের দ্বিতীয় বলে কিউই পেসার টিম সাউদির বাউন্সারের শিকার হন তিনি। বেশ গতির এই বলটি থেকে রক্ষা পেতে নুয়ে পড়েও রক্ষা পাননি, তাঁর ব্যাটের কানায় লেগে বলটি গিয়ে জমা হয় উইকেট রক্ষকের হাতে। এর আগে প্রথম ইনিংসে তিনি ১২৬ রান করেছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *