যুবরাজের কাছে হজের অনুমতি চান পাকিস্তানি হিজড়ারা

সৌদি যুবরাজের কাছে পবিত্র হজ ও ওমরাহ পালনে সুযোগ দিতে আহ্বান জানিয়েছেন পাকিস্তানের হিজড়া সম্প্রদায়। হিজড়া সম্প্রদায়ের লোকজন তাদের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন।

সৌদির আইন অনুযায়ী, শুধুমাত্র পুরুষ এবং নারীরা হজ এবং ওমরাহ ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। এর বাইরে তৃতীয় লিঙ্গের আবেদনের সুযোগ নেই।

রোববার স্থানীয় সময় সন্ধ্যার দিকে নির্ধারিত দুই দিনের সফরে পাকিস্তানে পৌঁছেছেন সৌদি যুবরাজ। তার যুবরাজের এই সফরকে কেন্দ্র করে সমাবেশের আয়োজন করে পাকিস্তানের তৃতীয় লিঙ্গের হিজড়ারা।

তারা সৌদি যুবরাজকে স্বাগত জানিয়ে হিজড়াদের ভিসা নিষেধাজ্ঞা বাতিল করতে বিন সালমানকে আহ্বান জানান।

পাকিস্তানের প্রথম হিজড়া হিসেবে এক্স ক্যাটাগরির পাসপোর্ট রয়েছে ফারজানা জ্যানের। পাসপোর্টের লিঙ্গ কলামে ‘এক্স’ ক্যাটাগরি থাকায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যেতে পারেন হিজড়ারা।

হিজড়াদের এই স্বীকৃতি দেয়ায় পাকিস্তান সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ফারজানা জ্যান।

ফারজানার আশা প্রকাশ করেছেন শিগগিরই সৌদি যুবরাজ তাদের এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের হজ ও ওমরাহ পালনের সুযোগ দেবেন।

পাকিস্তানের এই হিজড়া বলেন, আমি এক্স ক্যাটাগরির পাসপোর্ট নিয়ে বিশ্বের যেকোনো দেশে যেতে পারি। কিন্তু হজ ও ওমরাহ পালন করতে পারি না।

এর আগে যুবরাজকে স্বাগত জানিয়ে রোববার রাতে প্রধানমন্ত্রীর ভবনে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন ইমরান খান।

সেখানে এক বিশেষ অনুরোধে তিনি যুবরাজকে বলেন, সৌদি আরবে তিন হাজার পাকিস্তানি বন্দি রয়েছেন। তারা খুবই দরিদ্র। দেশে পরিবার-পরিজনকে ফেলে রেখে তারা কাজের খোঁজে সেখানে গিয়েছেন। যদি তাদের বিষয়টি আপনি বিবেচনায় নিতেন।

পরে সৌদি আরবের কারাগারে বন্দি দুই হাজার পাকিস্তানিকে মুক্তি দিতে নির্দেশ দিয়েছেন যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। পাকিস্তানি তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরীর বরাত দিয়ে ডন অনলাইন এমন খবর জানিয়েছে। এসময় যুবরাজ বলেন, সৌদি আরবে আমাকেই পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত হিসেবে বিবেচনা করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *