যবের ছাতুর উপকারিতা : 

ছাতু চাল, ছোলা, গম বা যব ভেজে ঢেঁকিতে বা মেশিনে গুঁড়া করা হয়। একেই বলে ছাতু। শুধু চালের ছাতু বা গমের ছাতুও হতে পারে। তবে একসঙ্গে সব উপাদান মিশিয়ে ছাতু বানালে তা বেশি সমৃদ্ধ হয়। এর উপকারিতা :
১। প্রতিদিনের নাস্তায় দুধের সঙ্গে যবের ছাতু মিশিয়ে খেলে ক্ষুধা কম লাগার পাশাপাশি পেট ভরা রাখে। তাছাড়া মোটা হওয়ার ঝুঁকি কমিয়ে হৃদপিণ্ড সুস্থ রাখাতে পারে।
২। যবের ছাতু খাবারে তৃপ্তি বাড়ায়, খাদ্যের গুণগতমান রক্ষা করে, হজম প্রক্রিয়ায় সহায়তা করাসহ হৃদপিণ্ড সম্বন্ধীয় এবং সাধারণ বিপাকীয় ব্যবস্থা ভালো রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।
৩। যবের ছাতুর বেটা-গ্লুক্যান আঁশ খাবারে পরিতৃপ্তি থাকতে সাহায্য করে এবং উপকারী ‘গাট’ ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।
৪। যবের ছাতু অন্ত্রের কিছু রোগের ক্ষেত্রে উপকারী হতে পারে। যেমন কোষ্ঠকাঠিন্য এবং প্রদাহজনীত পেটের রোগ।
৫। যবের ছাতু সার্বিকভাবে কোলেস্টেরল কমায় এবং খারাপ কোলেস্টেরলের ঘনত্ব কমিয়ে দেয়।
৬। “সার্ভিং হিসেবে ৬০ গ্রাম যবের ছাতু খেলে উল্লেখযোগ্যভাবে কোলেস্টেরল কমাতে পারে।” খারাপ কোলেস্টেরল আনুমানিক ৪ থেকে ৬ শতাংশ কমার জন্য হৃদপিণ্ডের ধমনীর রোগের হার ৬ থেকে ১৮ শতাংশ কমিয়ে দেয়।
যবের ছাতু দিয়ে তৈরি যে কোনো খাবারই শরীরের জন্য উপকারী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *