বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের অনিশ্চয়তা নিয়ে আইসিসির বক্তব্য

আর মাত্র ৯৯ দিন পর বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আয়োজন ওয়ানডে বিশ্বকাপের ২০১৯ সালের আসর বসছে ইংল্যান্ডে। ১০টি দল নিয়ে এবারের বিশ্বকাপ হবে রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে। ১৯৯২ সালের পর আবার এই ফরম্যাটে অনুষ্ঠিত হবে বিশ্বকাপ, যেখানে সবকটি দল একে অপরের মোকাবিলা করবে। আগামী ১৬ জুন টুর্নামেন্টের অন্যতম আকর্ষণীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত ও পাকিস্তান।

কিন্তু ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে সম্প্রতি এক আত্মঘাতী হামলায় ভারতের ৪০ জন আধা-সামরিক সৈন্য নিহত হলে দুই দেশের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। উত্তেজনার ঢেউ রাজনীতি থেকে এসে লেগেছে ক্রিকেটেও। হামলার জন্য পাকিস্তানকে দায়ী করে তাদের সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা বলেছেন ভারতের সাবেক ওপেনার গৌতম গম্ভীর। পাকিস্তানের বিপক্ষে বিশ্বকাপের ম্যাচসহ সব ধরনের ক্রিকেট বয়কট করার পরামর্শ দিয়েছেন হরভজন সিংয়ের মতো ভারতের সাবেক কয়েকজন ক্রিকেটার। ফলে বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচটি হবে কি না, তা নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে এক ধরনের অনিশ্চয়তা।

তবে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক ও বিশ্বকাপের আয়োজক সংস্থা আইসিসি বলছে, তারা ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে আশাবাদী। লন্ডনে সংবাদমাধ্যম ক্রিকইনফোকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেভিড রিচার্ডসন জানিয়েছেন, ‘দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ড থেকে ম্যাচ না খেলার বিষয়ে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা পাইনি। আইসিসিও কোনো চিঠি দেয়নি দুই বোর্ডকে। আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে রাখছি। তবে আশাবাদী নির্ধারিত সময়েই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।’

দুই দেশের উত্তেজনাকর পরিস্থিতি প্রশমনে ক্রিকেট খুব ভালো ভূমিকা রাখতে পারে জানিয়ে আইসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ‘বিভিন্ন জাতির মধ্যে ঐক্য ও সংহতি বৃদ্ধির ক্ষেত্রে খেলাধুলা, বিশেষ করে ক্রিকেটের অসাধারণ একটা ক্ষমতা রয়েছে। আশা করছি, ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বিভক্তি নয়, আস্থা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে ক্রিকেট চমৎকার ভূমিকা রাখতে পারবে।’

বিশ্বকাপে চিরবৈরী দুটি দেশের মধ্যকার ক্রিকেট লড়াই সারা দুনিয়ার ক্রিকেট ভক্তদের আগ্রহের শীর্ষে থাকে। ১৪ জুলাই লর্ডসে এবারের আসরের ফাইনালের টিকেটের জন্য আবেদন পড়েছে আড়াই লাখ। কিন্তু ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের টিকেটের জন্য এরই মধ্যে পাঁচ লাখ আবেদন জমা পড়েছে। শেষ পর্যন্ত সব অনিশ্চয়তা কাটিয়ে উত্তেজনায় ঠাসা ম্যাচটি হবে, এমন আশাই ব্যক্ত করেছে আইসিসি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *