ছোট ঘর বড় দেখানো যায় যেভাবে

আকাশচুম্বী মূল্যের জন্য মধ্যবিত্ত মানুষের জন্য বড় অ্যাপার্টমেন্ট কেনা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে। বাধ্য হয়েই অনেকে তাই ছোট ফ্ল্যাট কিনছেন। তবে থাকার জায়গাটি ছোট হলেও কিছু উপায় অবলম্বন করে ছোট জায়গাটিকেও বড় করে উপস্থাপন করতে পারবেন। এ লেখায় তুলে ধরা হলো তেমন কিছু উপায়। হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে সে বিষয়টি উঠে এসেছে।

১. বাসার ফার্নিচার পছন্দ করার ক্ষেত্রে কিছুটা বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিন। যেমন এর একটি উপায় হতে পারে প্রথমে বড় একটি বিছানা দিয়ে আপনার বেডরুমে একটি সম্পূর্ণতার অনুভূতি তৈরি। এরপর কক্ষের সঙ্গে মানানসই ছোট আকারের শেলফ ও অন্যান্য ফার্নিচার দিয়ে সাজান।

 ২. কক্ষে পর্দা লাগানোর সময় লক্ষ্য রাখুন এটি যেন আপনার দেয়ালের রঙের সঙ্গে মিলে যায়। আর এতে কক্ষের আকার অনেক বড় মনে হবে।

৩. ভেতরের বিভিন্ন কক্ষের মাঝের দরজা ও কাপবোর্ডের দরজা সরিয়ে ফেলা যেতে পারে। বিকল্প হিসেবে স্লাইডিং দরজা ব্যবহার করুন।
৪. বই রাখার জন্য ফ্লোর টু সিলিং বিস্তৃত সেলফ ব্যবহার করুন। এটি আপনার সিলিংয়ের উচ্চতা বাড়ানোর অনুভূতি দেবে। এছাড়া প্রচুর জিনিসও রাখা যাবে।
৫. ছোট বাসার জন্য মাল্টিফাংশনাল ফার্নিচার একটি ভালো সমাধান। এগুলোর মধ্যে রয়েছে ভাজ করে রাখা চেয়ার, টেবিল কিংবা সোফা কাম বেড।
৬. আপনার অব্যবহৃত জিনিসপত্র সরিয়ে ফেলুন।
৭. হালকা ও প্রাকৃতিক রঙ ব্যবহার করুন, এতে আপনার ছোট স্থানকেও বড় দেখাতে সহায়তা করবে।
৮. যেসব ফার্নিচার ভাজ করে রাখা যায়, সেগুলো ভাজ করে রাখুন। শুধু প্রয়োজনের সময় ব্যবহার করুন।
৯. আপনার দেয়ালের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে পর্দা ও ফার্নিচারের রঙ পছন্দ করুন।
১০. ভাজ করে রাখা যায় এরকম ডাইনিং টেবিল ব্যবহার করুন।
১১. জানালা খোলা রাখুন। এতে আপনার ছোট স্থানেরও আলাদা গভীরতা তৈরি হবে।
১২. ঘরের ভেতর পর্যাপ্ত সূর্যের আলোর ব্যবস্থা করুন। প্রাকৃতিক আলো-বাতাসে ছোট ঘরও হয়ে উঠবে স্বাস্থ্যকর।
১৩. ঘরে আনুন সবুজের ছোঁয়া। এজন্য যে বড় বাগান কিংবা মূল্যবান গাছ লাগাতে হবে, তা নয়। ঘরের ভেতর টবে রাখা একটি ছোট গাছই এজন্য যথেষ্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *