বাড়তি ওজনের বোঝা ঘাড় থেকে নামাতে চাইছেন, কিন্তু কোনও উপায়েই কাজ হচ্ছে না? নাকি নিয়মিত হজম সংক্রান্ত গোলমাল বড়ো বিব্রত করছে? প্রশ্ন যাই হোক না কেন, উত্তর একটাই, খাদ্যাভ্যাস বদলাতে হবে। ডাক্তার বা ডায়েটিশিয়ান যাঁর কাছেই যান না কেন, তিনি রোজের খাদ্যতালিকায় স্যালাড রাখার পরামর্শ অবশ্যই দেবেন, কারণ তার নানা উপকারিতা আছে।

মরশুমি ফল ও সবজিতে থাকে প্রয়োজনীয় পুষ্টিগুণ: তাজা, মরশুমি ফল ও শাকসবজি ভালো করে ধুয়ে নিয়ে যদি কাঁচা খাওয়া যায়, তা হলে আপনার শরীর পাবে নানা ভিটামিন, মিনারেল ও ফাইবারের জোগান। খাদ্যতালিকায় ফাইবার যত বেশি থাকবে, তত কমবে এলডিএল বা ক্ষতিকারক কোলেস্টেরলের পরিমাণ। পেট পরিষ্কার থাকবে, গ্যাস-অম্বল-বুকজ্বালা থাবা বসাতে পারবে না। ভালো থাকবে ত্বকআর চুলের স্বাস্থ্য। হার্ভার্ড স্কুল অফ পাবলিক হেলথ কর্তৃক প্রকাশিত একটি আর্টিকল অনুযায়ী, রোজ ফল আর তাজা শাকসবজি খেলে ভালো থাকে হার্ট, কমে রক্তচাপ। তাছাড়া যখন আপনি স্যালাড খাচ্ছেন, তখন সবুজ (লেটুস, আরুগুলা, পালং ইত্যাদি শাক, বিনস, ক্যাপসিকাম, কড়াইশুঁটি, অ্যাভোকাডো), হলুদ (ক্যাপসিকাম), কমলা (গাজর, কমলালেবু), লাল (বেল পেপার, বিট, বেদানা, স্ট্রবেরি, টোম্যাটো), বেগুনি (বাঁধাকপি, বেগুনি ভুট্টা), গোলাপি (বাতাবি লেবু) ইত্যাদি নানা প্রাকৃতিক রঙের সমাবেশ ঘটছে আপনার পাতে। প্রতিটি প্রাকৃতিক রঙের নানা গুণাগুণ আছে, শরীরে জোগান বাড়ে অ্যান্টি অক্সিড্যান্টেরও। স্যালাড আপনার শরীরের প্রদাহ কমাতে সাহায্য করবে।

খাওয়া শুরু করার আগে স্যালাড খাবেন কেন: খাওয়া শুরু করার আগে খানিকটা স্যালাড খেয়ে নিলে আপনার পেট বেশিক্ষণ ভরে থাকবে। ফলে বেশি ভাজাভুজি বা মশলাদার খাবার ইচ্ছে হলেও খেতে পারবেন না। স্যালাডে যদি ছোলা, চিকেন, ডিম, মাছের মতো কোনও না কোনও প্রোটিন যোগ করে নিতে পারেন, তা হলে তো আর কথাই নেই! প্রোটিন আপনার পেশির শক্তিও বাড়িয়ে তুলবে।

বাড়ির বাইরে স্যালাড খাওয়া কতটা নিরাপদ?
একেবারেই নয়। যত ভালো, দামি এমনকী অরগ্যানিক তকমা দেওয়া রেস্তোরাঁয় স্যালাড খান না কেন, মনে রাখতে হবে, আপনি যা খাচ্ছেন তা মূলত কাঁচা ফল-সবজি। ফলে তা কীভাবে রাখা হয়েছে, কীভাবে ধোওয়া হয়েছে, কতক্ষণ আগে কাটা হয়েছে তার উপর নির্ভর করে স্যালাডের মান। ব্যস্ত রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষে কীভাবে তা সুনিশ্চিত করবেন? অতিথির মুখে তৎক্ষণাৎ খাবার জোগানোর জন্য তাঁদের তো সবজি আগে থেকে কেটে রাখতেই হবে! অরগ্যানিক সবজি ব্যবহার করার মস্ত অসুবিধে হচ্ছে যে তাতে যেহেতু সারের ব্যবহার হয় না, তাই তার মধ্যে নানা জীবাণু বাসা বাঁধে। তাই খুব ভালো করে ধুয়ে নিয়ে তবেই খাওয়া উচিত। ড্রেসিংয়ের মান নিয়েও খুব নিশ্চিত হয়ে কিছু বলা যায় না। বাড়িতে বানিয়ে স্যালাড খাওয়াই সবচেয়ে ভালো উপায়।

চিকেন সিজ়ার স্যালাডের সহজ রেসিপি

উপকরণ:
60 গ্রাম কুচি করে নেওয়া আইসবার্গ লেটুস
60 গ্রাম গ্রিলড চিকেন
70 গ্রাম সিজ়ার স্যালাড ড্রেসিং (বাড়িতেও বানাতে পারেন)
10 গ্রাম পারমেসান চিজ়
20 গ্রাম গার্লিক ক্রুটন
20 গ্রাম ক্যানড কালো অলিভ

পদ্ধতি:
চিকেনে নুন-মরিচ পছন্দের হার্ব-লেবুর রস মাখিয়ে গ্রিল করে নিন।
গ্রিল করা চিকেন ছোট ছোট টুকরোয় কেটে নিতে হবে।
লেটুস, গ্রিলড চিকেন, স্যালাড ড্রেসিং একসঙ্গে মিশিয়ে নিন ভালো করে।
উপর থেকে ছড়িয়ে দিন পারমেসান চিজ়।
ঠান্ডা পরিবেশন করুন, পরিবেশনের আগে উপর থেকে ক্রুটন ছড়িয়ে দেবেন।